২ ডোজ টিকা নিয়েও তৃতীয়বার করোনায় আক্রান্ত চিকিৎসক 

একবার, দুইবার নয়, তৃতীয়বার করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ভারতের এক চিকিৎসক। মুম্বাইয়ের ২৬ বছরের এই চিকিৎসক গত ১৩ মাসের মধ্যে তৃতীয়বার…

লকডাউন চলবে 

মহামারী করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে চলমান বিধিনিষেধ (লকডাউন) আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্তই বলবৎ থাকবে এবং আগামী ৭ আগস্ট থেকে ইউনিয়ন পর্যায়ে করোনার…

দায়মুক্তি পাচ্ছেন না অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মচারীরা 

সরকারি চাকরি আইনে ২০১৮ সালে সরকারি কর্মচারীদের নানাবিধ সুবিধা নিশ্চিত করেছে। তবে এর তিন বছর কাটতে না কাটতেই জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়…

সব সংবাদ-তথ্য-ভিডিও

বিশ্ব

আবারও আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা বাড়াল ভারত 

আবারও আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা বাড়াল ভারত

করোনা সংক্রমণ কমার পর প্রায় সব সেক্টরেই নিষেধাজ্ঞা শিথিল করেছে ভারত। তবে আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেনি। বরং আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ আবারও বাড়িয়েছে দশেটি। আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশটিতে সব ধরনের যাত্রীবাহী বিমান চলাচল বন্ধ থাকবে। তবে কার্গো বিমান ও বিশেষভাবে পরিচালিত আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচলের ক্ষেত্রে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে না।

দেশটির বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (ডিজিসিএ) এক বিবৃতিতে এই ঘোষণা দিয়েছে বলে এনডিটিভি জানিয়েছে।

ডিজিসিএ জানায়, মহামারি করোনার প্রকোপ শুরুর পর গত ২৩ মার্চ থেকে আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ভারত। তবে করোনার প্রকোপ কমতে শুরু করলে কেন্দ্রীয় সরকার দেশটির অর্থনীতির বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা শিথিল করে। গত বছর অভ্যন্তরীণ বিমান চলাচল স্বাভাবিক করলেও আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখে।

এর আগে আরো কয়েক দফায় এই নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়ায় ভারত সরকার।

শুক্রবার সেই নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ আবারও বাড়ানোর ঘোষণা দেয় কর্তৃপক্ষ। এক বিবৃতিতে ডিজিসিএ জানায়, যথাযথ কর্তৃপক্ষ আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত আন্তর্জাতিক যাত্রীবাহী বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়িয়েছে। তবে কার্গো বিমান ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের বিশেষভাবে অনুমোদনপ্রাপ্ত বিমানের ক্ষেত্রে এই নিষেধাজ্ঞা শিথিল থাকবে।

এতে আরও বলা হয়, কিছু ক্ষেত্রে নির্ধারিত কিছু রুটে যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদনপ্রাপ্ত আগে থেকে নির্ধারিত বিমান চলাচল করবে।

এর আগে গত বছরের ডিসেম্বর কর্তৃপক্ষ যুক্তরাজ্যের সঙ্গে বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। ইউরোপের বিভিন্ন দেশে করোনার নতুন ধরন দেখা দেয়ায় এই নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়। তবে পরে তা প্রত্যাহার করা হয়।



Related posts