ভ্যাকসিন আসার আগেই মারা যেতে পারে ২০ লাখ মানুষ, হু’র সতর্কতা 

করোনা ভ্যাকসিন আবিষ্কারের আগেই বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ২০ লাখে পৌঁছাতে পারে বলে সতর্ক করলো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এখনই…

আপনার আঙুলের নখ যেসব অসুখের লক্ষণ নির্দেশ করে 

কখনো কী ভেবেছেন আপনার আঙুলের হলুদ এবং ক্ষয়ে যাওয়া নখগুলো হতে পারে কঠিন সব রোগের উপসর্গ? হ্যাঁ, অবশ্যই আপনার আঙুলের…

ডোপ টেস্টে পজেটিভ হওয়ায় চাকরি হারাচ্ছেন ২৬ পুলিশ সদস্য 

ডোপ টেস্টে পজেটিভ হওয়ায় ২৬ পুলিশ সদস্য বরখাস্তের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল…

সব সংবাদ-তথ্য-ভিডিও

চলমান

এই দিনে চলে গেছেন বাউল সম্রাট শাহ আবদুল করিম 

এই দিনে চলে গেছেন বাউল সম্রাট শাহ আবদুল করিম

আজ বাউল সম্রাট শাহ আবদুল করিমের ১১তম প্রয়াণ দিবস। তবে তার মৃত্যু দিবসে নেই বড় ধরনের কোন আনুষ্ঠানিকতা। ভক্ত ও সংস্কৃতি কর্মীরা বলছেন, নতুন প্রজন্মের কাছে দেশের সংস্কৃতিকে তুলে ধরতে শাহ আবদুল করিমের মত বাউল সাধকের জন্ম ও মৃত্যু দিবস রাষ্ট্রীয়ভাবে পালন করা উচিত।

“আগে কী সুন্দর দিন কাটাইতাম”, “বসন্ত বাতাসে” সহ অসংখ্য কালজয়ী গানের স্রষ্টা তিনি। ভাটিবাংলার জনজীবনের কথা উঠে এসেছে শাহ আব্দুল করিমের গানে। বাংলার মরমী গানকে দিয়েছেন নতুন দিশা।

দীর্ঘ সঙ্গীত জীবনে বাউল, আধ্যাত্মিক ও ভাটিয়ালি মিলিয়ে ১৬শ’র বেশি গান লিখেছেন ও সুর করেছেন শাহ আবদুল করিম। পেয়েছেন একুশে পদক। ২০০৯ সালের ১২ সেপ্টেম্বর সিলেটে মৃত্যু হয় এই কীর্তিমানের।

স্থানীয় সংস্কৃতিকর্মীরা বলছেন, বাউল গান এবং শাহ আব্দুল করিমের জীবনদর্শন চর্চায় সরকারীভাবে কোনো উদ্যোগ না থাকায় দেশের তরুণ প্রজন্ম এই ধারা সম্পর্কে জানার সুযোগ পাচ্ছে না।

শাহ আবদুল করিমের বাড়িতে স্থাপিত সঙ্গীত বিদ্যালয়টি বর্তমানে চলছে স্থানীয় উদ্যোগে। এটিকে সরকারি ব্যবস্থাপনায় নেয়ার দাবি করলেন তারা।

তবে সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ জানান, লোকসঙ্গীতে শাহ আবদুল করিমের অবদান বিবেচনায় তার জন্ম ও মৃত্যু দিবস সরকারিভাবে পালনের জন্য সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রনালয়ে চিঠি দেয়া হয়েছে।

আব্দুল করিমের প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে উজানধলের সমাধি ও বাড়ি ঘিরে দুর-দুরান্ত থেকে জড়ো হয় অসংখ্য ভক্ত। রাতভর চলে বাউল গানের আসর।



Related posts