লেন্স গলে চোখই হারাতে বসেছিলেন নায়িকা 

দিন দিন বেড়েই চলছে কন্টাক্ট লেন্সের ব্যবহার। বিশেষ করে তরুণীরা খুবই আগ্রহী চোখ আকর্ষণীয় করে তোলার এই অনুষঙ্গে। অনেক নায়িকা-মডেলও…

ফেশিয়াল রিকগনিশনে ৬৫ কোটি ডলার খসছে ফেসবুকের 

ফেসবুকের ফেশিয়াল রিকগনিশন বিষয়ে ক্লাস অ্যাকশন মামলা ৬৫ কোটি মার্কিন ডলারে মীমাংসার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছেন মার্কিন ফেডারেল বিচারক। দুই পক্ষের…

নতুন দল নয়, নির্বাচনী লড়াইয়ের ঘোষণা ট্রাম্পের 

২০২৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়াইয়ের ইঙ্গিত দিয়েছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে নতুন রাজনৈতিক দল খোলার পরিকল্পনা নেই বলে…

সব সংবাদ-তথ্য-ভিডিও

বিশ্ব

করোনায় মৃত্যুর দায় নিজের কাঁধে নিলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী 

করোনায় মৃত্যুর দায় নিজের কাঁধে নিলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

,নতুন করে সংক্রমণ বেড়েছে ব্রিটেনে। বাড়ছে মৃত্যুর মিছিলও। মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিকভাবে দেশটিতে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ছাড়িয়েছে এক লাখ৷ এ সমস্ত মৃত্যু ও অন্যান্য বিপর্যয়ের দায় স্বীকার করে নিয়েছেনব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

মঙ্গলবার করোনা আক্রান্ত হয়ে ১ হাজার ৬৩১ জনের মৃত্যু হয় ব্রিটেনে।  সব মিলিয়ে কোভিড আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ লক্ষ ১৬২ জন।

ডাউনিং স্ট্রিটে এক সাংবাদিক সম্মেলনে করোনার এই মৃত্যুমিছিলের সব দায়ভার নিজেই নেন বরিস জনসন। বলেন, ‘যে সমস্ত প্রাণ ঝরে গেল, তার প্রত্যেকটির জন্য আমি গভীর ভাবে মর্মাহত। অবশ্যই একজন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে সবকিছুর পূর্ণ দায়ভার আমি নিচ্ছি।’

সাংবাদিক সম্মেলনে কার্যতই হতাশ দেখাচ্ছিল ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীকে।  তিনি বলেন, ‘এই ভয়ংকর পরিসংখ্যানের হিসেব করা সত্যিই দুঃখজনক। মৃতদের দেখতে আত্মীয়রা আসতে পারছেন না। একবার বিদায় জানানোর সুযোগও পাচ্ছেন না তারা। আমরা এই পরিস্থিতিতে সবাই একসঙ্গে মিলে লড়াই করতে পারি। যতটা সম্ভব বাড়িতে থেকে ও ভ্যাকসিন নিয়ে ভাইরাসটাকে হারানোর চেষ্টা করা দরকার।’

কয়েকদিন আগেই বরিস দাবি করেছিলেন, গবেষণায় যতটুকু দেখা গেছে, করোনার নতুন এই ভাইরাস  আগের চেয়ে  অনেক বেশি প্রাণঘাতী। বলেছিলেন, ‘কেবল দ্রুত ছড়ানোই নয়, তার পাশাপাশি লন্ডন ও দক্ষিণপূর্ব ব্রিটেনে প্রথম দেখা মেলা এই স্ট্রেন থেকে মৃত্যুর হারও বেশি। এই ব্যাপারে বেশ কিছু প্রমাণ মিলেছে।’

তবে আশাবাদী ইংল্যান্ডের প্রধান মেডিক্যাল অফিসার প্রফেসর ক্রিস হুইট্টি। তার আশা, ‘আগামী দু’সপ্তাহের মধ্যে ধীরে ধীরে সংক্রমণ কমবে। কেবল আমাদের সতর্ক থাকতে হবে আমরা যেন লকডাউনের নিষেধাজ্ঞাকে কোনও রকম অবহেলা না করি।’

একই সঙ্গে গুজবে কান না দেওয়ারও অনুরোধ জানানো হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। বিশেষ করে ভ্যাকসিন নিয়ে মিথ্যে খবরের ফলে আরও বেশি প্রাণহানি হতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে।



Related posts