corona lockdown shibchar
সারাদেশে ১৪ দিন সর্বাত্মক শাটডাউনের সুপারিশ 

করোনার ডেলটা প্রজাতির ভাইরাসের সামাজিক সংক্রমণ ঠেকাতে সারাদেশে সর্বাত্মকভাবে ১৪ দিনের কঠোর শাটডাউনের সুপারিশ করেছে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক…

অনলাইন শপিংয়ের জন্য নতুন ফিচার আনছে ফেসবুক 

শিগগিরই ই-কমার্স ও অনলাইন শপিংয়ের জন্য নতুন ফিচার নিয়ে আসবে ফেসবুক। গতকাল নিজের ওয়ালে দেয়া এক পোস্টে এ তথ্য নিশ্চিত…

ব্রাজিলের বিতর্কিত গোলে রাগে ফুসছে কলম্বিয়া 

কোপা আমেরিকায় জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছে স্বাগতিক ব্রাজিল। গতকাল বুধবার (বাংলাদেশ সময় অনুযায়ী আজ বৃহস্পতিবার) অনুষ্ঠিত কোপা আমেরিকায় ব্রাজিল ২-১…

সব সংবাদ-তথ্য-ভিডিও

খেলা

কোপায় খেলবে আর্জেন্টিনা 

কোপায় খেলবে আর্জেন্টিনা

দিন বাকি আর ছয়টি। কিন্তু ১৩ জুন থেকে শুরু হতে যাওয়া কোপা আমেরিকা হবে কি না, তা নিয়ে সংশয় এখনো কাটছেই না! আর্জেন্টিনা ও কলম্বিয়ার যৌথ আয়োজনে হওয়ার কথা থাকলেও অনেক নাটকের পর শেষ মুহূর্তে ব্রাজিলে এবারের কোপা আমেরিকা আয়োজনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। কিন্তু নিজেদের দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ভয়াবহ অবস্থার মধ্যে কোপা আমেরিকা খেলতে আপত্তি আছে ব্রাজিলেরই বেশ কয়েকজন খেলোয়াড়ের।

কাসেমিরো-আলিসনরা খেলবেন নাকি টুর্নামেন্ট বয়কট করবেন, সে সিদ্ধান্ত জানাবেন বুধবার বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচের পর। এর আগে উরুগুয়ের স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজ, আর্জেন্টিনার স্ট্রাইকার সের্হিও আগুয়েরো, কোচ লিওনেল স্কালোনিসহ অনেকে ব্রাজিলের খেলোয়াড়দের সিদ্ধান্তের পক্ষেও দাঁড়িয়েছিলেন।

কিন্তু এর মধ্যে গতকাল রোববার (৬ জুন) আলিসন-কাসেমিরোরা হয়তো ধাক্কা খেয়েছেন আর্জেন্টিনার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (এএফএ) বিবৃতি পড়ে। এএফএর সিদ্ধান্ত, তারা ব্রাজিলে কোপা আমেরিকা খেলতে যাবে। এএফএর বিবৃতির কারণে আগামী ১৩ জুন কোপা আমেরিকা শুরু হওয়া নিয়ে সংশয় একটু কমার কথা।

‘নিজেদের ইতিহাসে সব সময় খেলার যে চেতনা ধারণ করে এসেছে, সেটি ধরে রেখেই আর্জেন্টিনা জাতীয় দল কোপা আমেরিকা ২০২১-এ নিজেদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করছে। কঠিন এ সময়ে সুনির্দিষ্ট যেসব দিকে যত্ন নেওয়ার কথা খেয়াল রাখতে হয়, সেটি নিশ্চিত করতে যার হাতে যা কিছু আছে, সম্ভাব্য সবকিছু দিয়ে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের প্রাণান্ত চেষ্টার ফলেই মহাদেশীয় এ টুর্নামেন্ট খেলতে জাতীয় দল ব্রাজিলে যাবে। কঠিন এ সময় সব দক্ষিণ আমেরিকানকে সমানভাবে ভোগাচ্ছে। এই বিরুদ্ধ পরিস্থিতিকে কাটিয়ে উঠতে আলবিসেলেস্তের (আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের ডাকনাম) প্রত্যেক কর্মীই একসঙ্গে কাজ করবে’ – কঠিন ভাষায় লেখা এএফএর বিবৃতির ভাষ্য।

এই কোপা আমেরিকা আসলে হওয়ার কথা ছিল গত বছর আর্জেন্টিনা-কলম্বিয়ার যৌথ আয়োজনে। কিন্তু করোনার কারণে সেটি পিছিয়ে এ বছরের জুনে চলে আসে। আর্জেন্টিনা-কলম্বিয়ার যৌথ আয়োজনেই হওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু কলম্বিয়ায় সরকারবিরোধী সহিংস বিক্ষোভের কারণে তাদের আয়োজনের স্বত্ব কেড়ে নেয় দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবল নিয়ন্ত্রক সংস্থা কনমেবল। এরপর আর্জেন্টিনারই পুরো টুর্নামেন্ট আয়োজনের কথা শোনা গেলেও সেখানে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নেওয়ায় পর আর্জেন্টিনা থেকেও টুর্নামেন্ট সরিয়ে নেওয়া হয়। এরপর হঠাৎ কনমেবল ঘোষণা দেয়, ২০১৯ সালে সর্বশেষ কোপা আমেরিকার আয়োজক ব্রাজিলই এবারের কোপাও আয়োজন করবে।

এ ঘোষণা বিতর্ক আরও উসকে দিয়েছে। ব্রাজিলে করোনা পরিস্থিতি দক্ষিণ আমেরিকায় সবচেয়ে ভয়াবহ। আক্রান্তের হারে বিশ্বে যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের পরই আছে ব্রাজিল। মৃত্যুর সংখ্যাও এরই মধ্যে পাঁচ লাখ ছাড়িয়েছে। এ মুহূর্তে করোনা সংক্রমণের ভয়াবহ অবস্থা সেখানে। এর মধ্যে ব্রাজিলে হঠাৎ টুর্নামেন্ট আয়োজনের পেছনে রাজনীতির হাত আছে বলে শোনা যাচ্ছে।

ব্রাজিলের খেলোয়াড়দের বেশ কয়েকজন অবশ্য এভাবে ব্রাজিলে টুর্নামেন্ট আয়োজনের বিপক্ষে। গত শনিবার ইকুয়েডরের বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে ব্রাজিল কোচ তিতে জানিয়ে দেন, কাসেমিরো-আলিসনরা ব্রাজিলে কোপা আয়োজনের বিপক্ষে। সেদিন ম্যাচের পর কাসেমিরো নিজেও আরেকবার একই কথা জানান। বাংলাদেশ সময় বুধবার সকাল ৬টা ৩০ মিনিটে প্যারাগুয়ের মাঠে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচ ব্রাজিলের, এরপরই খেলোয়াড়েরা নিজেদের সিদ্ধান্ত জানাবেন বলে শোনা যাচ্ছে।

এর মধ্যে আর্জেন্টিনার দিক থেকে খেলার ঘোষণা আসায় কাসেমিরোরা হয়তো একটু হতাশই হবেন।



Related posts