স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট২০ ফোনেই থাকছে না হেডফোন 

স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি নোট২০ কিংবা নোট২০ আলট্রা ফোনটি যদি কেউ কিনে থাকেন তাহলে প্যাকেটটি হাতে নিয়েই খানিকটা হাল্কা লাগতে পারে। কেন…

বরেণ্য সুরকার আলাউদ্দিন আলী আর নেই 

বরেণ্য গীতিকার ও সুরকার আলাউদ্দিন আলী মৃত্যুবরণ করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্নালিল্লাহি রাজিউন)। রোববার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে রাজধানীর একটি হাসপাতালে…

স্বাভাবিক হচ্ছে ট্রেন চলাচল 

দীর্ঘদিন পর স্বাভাবিক হচ্ছে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল। আগামী ১৫ আগস্টের পর পর্যায়ক্রমে সকল আন্তঃনগর ট্রেন চালু হ‌বে বলে জানিয়েছেন রেলপথ…

সব সংবাদ-তথ্য-ভিডিও

লাইফ

খাবার হজম না হলে কী করবেন, জেনে নিন 

খাবার হজম না হলে কী করবেন, জেনে নিন

বছর ঘুরে আবার এসেছে কোরবানির ঈদ। মুসলিম উম্মাহর অন্যতম বৃহত্তম পবিত্র উৎসব ঈদ উল আজহা। কোরবানির ঈদের অন্যতম আকর্ষণ পশু কোরবানি। কোরবানি শেষে সমস্ত রীতি-নীতি পালন করে আসে সেই মজার সময়, অর্থাৎ কোরবানির গোস্ত খাওয়ার সময়। সুস্বাদু গোস্ত কোরবানির ঈদের খাবারের অন্যতম আকর্ষণ। সেই সাথে অন্যান্য বাহারি খাবার তো খাকেই।

কিন্তু এই গরমে অতিরিক্ত গোস্তসহ নানা পদের খাবারে একটু সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। তা না হলে নানা রকমের বিড়ম্বনায় পড়তে হবে। এর মধ্যে আছে গ্যাস, পেট ফাঁপা, খাবার জমাট হয়ে যাওয়া, কোষ্ঠকাঠিন্য, বুকজ্বালা ও অবসাদ। এই গরমে সবচেয়ে বেশি যে সমস্যায় ভূগতে হয় তা হলো হজমের সমস্যা। তাই এই সময়ে খাবার গ্রহণে সাবধানী হতে হবে। সেই সাথে কিছু বদ হজম দূর করতে কিছু কৌশল অবলম্বন করতে হবে। যেমন

-আঁশযুক্ত ও পূর্ণ শস্য খাবার খেতে হবে। সেই সাথে সবুজ শাকসবজি ও ফল খেলে পরিপাকতন্ত্র ভালো থাকে।

-দ্রবণীয় ও অদ্রবণীয় দুই ধরনের আঁশযুক্ত খাবার খেতে হবে, যা বিভিন্নভাবে পরিপাকতন্ত্র ভালো রাখে।

-খাবার দ্রুত খাওয়া যাবে না, খাবার ভালোভাবে চিবিয়ে খেতে হবে। চিবিয়ে খাবার খাওয়া হজমের জন্য উপকারী।

-খাবার গিলে না খেয়ে অল্প অল্প করে চিবিয়ে খেতে হবে। এতে খাবারের ওপর আপনার নিয়ন্ত্রণ আসবে। প্রতি কামড় খাবার স্বাদ নিয়ে ভালো করে চিবিয়ে খেতে হবে। এবাবে খাবার খেলে ওজন কমে বলে বিভিন্ন গবেষণায় গবেষকরা দেখিয়েছেন।

-সারাদিন প্রচুর পরিমাণ পানি খেতে হবে। সেই সাথে হালকা গরম পানিও খাওয়া যায়। প্রতিদিন সকালে নাশতার ৩০ মিনিট আগে কুসুম কুসুম গরম পানি খেলে পরিপাকতন্ত্র পরিষ্কার থাকবে এবং আন্ত্রিক রস উৎপাদন বাড়বে। এই রস পেটে খাবারকে ভাঙে। এছাড়া বেশি পানি খেলে কোষ্ঠকাঠিন্যও দূর হয়।

-বেশি কাবার খাবার যাবে না, বেশি খাবারে বদহজম হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে। তাই পরিমিত খাবার খেতে হবে। বেশি রাত করে খাবার খাওয়া যাবে না, রাতে হজম দেরিতে হয়।

-বেশি চর্বিযুক্ত খাবার খাওয়া যাবে না। চর্বিযুক্ত খাবার হজমপ্রক্রিয়ার গতি কমিয়ে দেয়, যা কোষ্ঠকাঠিন্য তৈরি করে।

Related posts