স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট২০ ফোনেই থাকছে না হেডফোন 

স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি নোট২০ কিংবা নোট২০ আলট্রা ফোনটি যদি কেউ কিনে থাকেন তাহলে প্যাকেটটি হাতে নিয়েই খানিকটা হাল্কা লাগতে পারে। কেন…

বরেণ্য সুরকার আলাউদ্দিন আলী আর নেই 

বরেণ্য গীতিকার ও সুরকার আলাউদ্দিন আলী মৃত্যুবরণ করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্নালিল্লাহি রাজিউন)। রোববার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে রাজধানীর একটি হাসপাতালে…

স্বাভাবিক হচ্ছে ট্রেন চলাচল 

দীর্ঘদিন পর স্বাভাবিক হচ্ছে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল। আগামী ১৫ আগস্টের পর পর্যায়ক্রমে সকল আন্তঃনগর ট্রেন চালু হ‌বে বলে জানিয়েছেন রেলপথ…

সব সংবাদ-তথ্য-ভিডিও

চলমান

দাম না থাকায় কোরবানীর পশুর চামড়া নদীতে! 

দাম না থাকায় কোরবানীর পশুর চামড়া নদীতে!

দাম না পেয়ে কোরবানীর পশুর চামড়া পদ্মা নদীতে ফেলে দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। রোববার দুপুরের দিকে রাজশাহীর বুলনপুরে আই-বাঁধ সংলগ্ন পদ্মা নদীতে ১৫০০ পিস ছাগলের চামড়া পদ্মা নদীতে ফেলা হয়।

ফেসবুকে পোস্ট করা ভিডিও সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

তৌহিদ ফেরদৌস তন্ময় নামের একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী এ ভিডিও দিয়েছেন। পদ্মা নদীতে কোরবানির পশুর চামড়া ফেলার ছবি ও ভিডিও পোস্ট করে তিনি লিখেছেন, রাজশাহীর ব্যবসায়ীরা দাম না পেয়ে কোরবানির পশুর চামড়া পদ্মা নদীতে ফেলে দিচ্ছেন। রাজশাহীর আই-বাঁধ সংলগ্ন নদীতে চামড়াগুলো ফেলে দিয়েছেন তারা। এভাবেই নষ্ট হচ্ছে আমাদের দেশের সম্পদ ও পদ্মা নদীর পরিবেশ।

খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, রাজশাহীতে এবার সবচেয়ে কম দামে বিক্রি হচ্ছে কোরবানির পশুর চামড়া। প্রত্যাশিত দামে নিজেরা বিক্রি করতে না পেরে অনেকেই চামড়া সরাসরি দান করেছেন মাদ্রাসা অথবা এতিমখানায়। আবার সেসব চামড়া নিয়ে বিপাকে পড়েছে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো। অনেক মৌসুমি ব্যবসায়ী বিক্রি করতে না পেরে চামড়া পদ্মা নদীতে ফেলে দিয়েছেন।

সরকার চামড়ার দাম নির্ধারণ করলেও গরুর চামড়া বিক্রি হচ্ছে ৩শ’ থেকে ৪শ’ টাকা দরে। আর ছাগলের চামড়া বিক্রি হয়েছে ১০ থেকে ৩০ টাকা প্রতিটি। ছোট আকারের ছাগলের চামড়া বিক্রিই করতে পারেননি অনেকে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে আড়তদারদের বিনামূল্যে কোরবানির পশুর চামড়া দিতে বাধ্য হয়েছেন অনেকে। অনেকে রিকশা ভাড়া দিয়ে চামড়া নিয়ে এসে ভাড়ার চেয়েও কম দামে বিক্রি করেছেন।

অভিযোগ রয়েছে, মূলধন বকেয়ার অজুহাত দেখিয়ে অধিক মুনাফার আশায় বড় আড়তদারদের সিন্ডিকেট বাজার নিম্নমুখি করেছে। যদিও আড়তদাররা দায়ী করছেন ট্যানারি মালিকদের।

Related posts