স্কুল-কলেজ দুই সপ্তাহ বন্ধ থাকবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী 

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় ২১ জানুয়ারি থেকে ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সব স্কুল ও কলেজ বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। …

দেশের বিভিন্ন জায়গায় ভূমিকম্প অনুভূত 

রাজধানী ঢাকাসহ দেশের দেশের বিভিন্ন জায়গায় ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। আজ শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) বিকেল ৪টা ১২ মিনিটে এই ভূমিকম্প অনুভূত…

আইসিসির বর্ষসেরা ওয়ানডে দলে বাংলাদেশের ৩ জন 

টি-টোয়েন্টির পর বর্ষসেরা ওয়ানডে দল প্রকাশ করেছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। যেখানে জায়গায় পেয়েছেন বাংলাদেশের ৩ ক্রিকেটার। অলরাউন্ডার সাকিব আল…

সব সংবাদ-তথ্য-ভিডিও

চলমান

পদ্মা সেতুতে বসলো ৩৩তম স্প্যান 

পদ্মা সেতুতে বসলো ৩৩তম স্প্যান

পদ্মা সেতুতে বসানো হয়েছে আরো একটি স্প্যান। এরমধ্য দিয়ে দৈর্ঘ্য বাড়লো স্বপ্নের পদ্মা সেতুর। সোমবার দুপুরে পদ্মা সেতুর মুন্সিগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে ৩ ও ৪ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হয় ৩৩তম স্প্যানটি।এর মাধ্যমে পদ্মা সেতুর দৃশ্যমান হলো প্রায় ৫ কিলোমিটার অংশ।

৩২তম স্প্যান বসানোর ৮ দিন পর বসনো হলো ৩৩তম স্প্যানটি। সবকিছু ঠিকঠাক থাকায় মাওয়া কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ৩ হাজার ৬শ টন ধারণ ক্ষমতার ভাসমান ক্রেনে স্প্যানটি বহন করে নির্ধারিত পিলারের কাছে আনা হয়।

এরপর শুরু হয় স্প্যান বসানোর কাজ। নদীর স্রোত বা অন্য কোনো কারণে সমস্যা দেখা না দেয়ায় স্প্যান বসানোর কাজ খুব ভালোভাবেই হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রকল্পের কর্তৃপক্ষ। এর আগে ১১ অক্টোবর সেতুর ৩২তম স্প্যান বসানোর ক্ষেত্রে আবহাওয়া অনুকূলে না থাকায় দুদিন সময় লাগে স্প্যানটি বসাতে।

পদ্মা সেতুতে ৩৩তম স্প্যান বসানো হওয়ায় বাকি থাকলো আর ৮টি স্প্যান। স্প্যানগুলো মাওয়া কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে প্রস্তুত করে রাখা আছে।

২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর সেতুর জাজিরা প্রান্তে ৩৭-৩৮ নম্বর পিলারে প্রথম স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হয় পদ্মা সেতু। গত ৩০ মে পর্যন্ত জাজিরা প্রান্তে সেতুর ২৮টি স্প্যান বসানো হয়। গত ৩০ মে জাজিরা প্রান্তে সেতুর ২৬ ও ২৭ নম্বর পিলারের (খুঁটি) উপর বসানো হয় ৩০তম স্প্যান। এরপর চলতি বছরের ১০ জুন সেতুর জাজিরা প্রান্তের ২৫ ও ২৬ নম্বর খুঁটির ওপর বসানো হয় সেতুর ৩১তম স্প্যান।

২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হয়। মূল সেতু নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি (এমবিইসি) ও নদীশাসনের কাজ করছে দেশটির আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন।

৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এই বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে পদ্মা সেতুর কাঠামো। সেতুর ওপরের অংশে যানবাহন ও নিচ দিয়ে চলবে ট্রেন।



Related posts