সৌদিগামী বাংলাদেশিদের জন্য নতুন সুযোগ 

দেশে আটকে থাকা প্রবাসী শ্রমিকদের সৌদি আরবে ফিরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে চলমান সংকট নিরসনে আগামী সোমবার পর্যন্ত সময় চেয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ…

করোনায় আক্রান্ত টাইগার পেসার রাহী 

করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের পেসার আবু জায়েদ রাহী। তাকে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের একাডেমি ভবনে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। এর…

ট্রাম্প বিরোধী ভুয়া পেজ মুছে দিলো ফেসবুক 

এশিয়ান এবং আমেরিকান রাজনীতিতে হস্তক্ষেপের অভিযোগ ১৫৫টি চীনা অ্যাকাউন্ট ডিলিট করেছে ফেসবুক। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম জায়ান্ট প্রতিষ্ঠাটির পক্ষ থেকে জানানো…

সব সংবাদ-তথ্য-ভিডিও

টেক

মাইক্রোসফট নয়, যুক্তরাষ্ট্রে টিকটকের পার্টনার ওরাকল 

মাইক্রোসফট নয়, যুক্তরাষ্ট্রে টিকটকের পার্টনার ওরাকল

যুক্তরাষ্ট্রে টিকটক বিক্রির যে সময়সীমা বেধে দিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, তা শেষ হওয়ার আগেই জানা গেলো দেশটিতে টিকটকের ব্যবসায়ীক অংশীদার হচ্ছে ওরাকল করপোরেশন, মাইক্রোসফট নয়। দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানিয়েছে, টিকটক পুরোপুরি বিক্রি হচ্ছে না। দুই কোম্পানি পার্টনারশিপে যুক্তরাষ্ট্রে ব্যবসা করবে। সেরকমই চুক্তি হয়েছে।

এর আগে শোনা যাচ্ছিল যে টিকটক কিনে নিচ্ছে মাউক্রোসফট। টিকটক কেনার এই প্রতিযোগিতায় মার্কিন প্রযুক্তি জায়ান্ট মাইক্রোসফটের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে বাইটড্যান্স। টিকটক বিক্রির জন্য কিছুদিন ধরে মার্কিন ক্রেতা খুঁজছিল বাইটড্যান্স।

তবে টিকটক এবং ওরাকলের সঙ্গে ঠিক কী ধরনের চুক্তি হয়েছে, তার বিস্তারিত জানা যায়নি। শুধু জানা গেছে, টিকটক পুরোপুরি বিক্রি হচ্ছে না। ওরাকল খুব দ্রুত এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেবে বলে জানানো হয়েছে।

এর আগে মাইক্রোসফট এক বিবৃতিতে বলে, বাইটড্যান্স জানিয়েছে তারা আমাদের কাছে বিক্রি করবে না। আমাদের প্রস্তাব টিকটক ব্যবহারকারীদের জন্য ভালো ছিল বলে বিশ্বাস করি।

এর আগে গত মাসে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চীনা অ্যাপ টিকটককে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি হিসেবে অভিহিত করে এক নির্বাহী আদেশ জারি করে টিকটকের মালিকানা যুক্তরাষ্ট্রের কোনো প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রির জন্য সময়সীমা বেধে দেন। ট্রাম্প প্রশাসনের বেঁধে দেয়া সময় ছিল ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

টিকটক চীন সরকারকে যুক্তরাষ্ট্রের তথ্য সরবরাহ করে বলেও অভিযোগ করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ট্রাম্প নির্বাহী আদেশ জারির পর হুমকি দিয়ে বলেন, এই সময়সীমার মধ্যে টিকটক বিক্রি না করা হলে যুক্তরাষ্ট্রে তা নিষিদ্ধ করা হবে। ট্রাম্পের এমন হুমকির পর থেকে সম্ভাব্য ক্রেতাদের কাছে টিকটকের মার্কিন ব্যবসা বিক্রি করার জন্য বাইটড্যান্স মার্কিন জায়ান্ট ওরাকল এবং মাইক্রোসফটের সঙ্গে আলোচনা শুরু করে।



Related posts