ইংরেজি শেখাতে বিনামূল্যে কোর্স নেবে মার্কিন দূতাবাস 

যাদের মাতৃভাষা ইংরেজি নয়, এমন মানুষের জন্য ইংরেজি ভাষার দক্ষতা বৃদ্ধি ও গণমাধ্যম সম্পর্কে জ্ঞান বৃদ্ধির জন্য বিনা মূল্যে অনলাইন…

বাংলাদেশ থেকে ব্যান্ডউইথ নেবে সৌদি আরব-ভারত, নেপাল 

বাংলাদেশ থেকে ব্যান্ডউইথ কেনার ব্যাপারে প্রকাশ করেছে সৌদি আরব, ভারত, নেপাল ও ভুটান। আনুষ্ঠানিকভাবে ভুটান ও ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য প্রস্তাব…

প্রথম দেশ হিসেবে কৃত্রিম মাংস ব্যবহারের অনুমতি দিলো সিঙ্গাপুর 

প্রথম দেশ হিসেবে কৃত্রিম মাংস ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে সিঙ্গাপুর। গবেষণাগারে কৃত্রিম উপায়ে তৈরি মাংস খাওয়ার অনুমতি দেওয়ার ঘটনা বিশ্বে এটাই…

সব সংবাদ-তথ্য-ভিডিও

বিশেষ

যে কারণে আসতে পারে করোনা পরীক্ষার ভুয়া নেগেটিভ ফল 

যে কারণে আসতে পারে করোনা পরীক্ষার ভুয়া নেগেটিভ ফল

করোনার উপসর্গ দেখা দিলেই পরীক্ষা করার উপদেশ দেন বিশেষজ্ঞরা। পরীক্ষা করে নিশ্চিত হতে হবে যে আপনার করোনা হয়েছে কিনা, তা না হলে আপনার মাধ্যমে পরিবারের সদস্যসহ অন্যদের মধ্যে সংক্রমণ ঘটতে পারে। কিন্তু অনেকসময় করোনা পরীক্ষার ফলাফল ভুয়া আসে, এতে বিপাকে পড়তে হয়। বিশেষ করে ভুয়া নেগেটিভ ফল আসলে বিপদ ঘটতে পারে। কারণ কারো ভুয়া নেগেটিভ ফল আসলে সে নিশ্চিন্ত মনে ঘুরবে বা অন্যান্য কাজ করবে। এতে করে তার মাধ্যমে অন্যরা সংক্রমিত হবে।

বিভিন্ন কারণে করোনা পরীক্ষার ভুয়া নেগেটিভ ফলাফল আসতে পারে। টাইমস অফ ইন্ডিয়া এ ধরনের তিনটি কারণের কথা উল্লেখ করেছে।

দ্রুত করোনা পরীক্ষা করা
কারো করোনা সংক্রমণ হলে সাধারণত উপসর্গ দেখা দিতে দুই থেকে চারদিন সময় লাগে। তবে কখনো কখনো পুরোপুরি উপসর্গ দেখা দিতে দুই সপ্তাহ পর্যন্ত লেগে যেতে পারে। এক্ষেত্রে করোনা কেউ করোনা আক্রান্ত হওয়ার পরও পরীক্ষায় ভুয়া নেগেটিভ ফলাফল আসতে পারে। এ কারণে বলা হয়ে থাকে, করোনার উপসর্গ দেখা দিলে প্রথম সপ্তাহে পরীক্ষা করানো কিংবা সন্দেহ দুর করার জন্য দ্বিতীয়বার পরীক্ষা করানো উচিত। তবে নেগেটিভ ফল নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত নিজেকে আইসোলেশনে রাখতে হবে, যেন অন্য কেউ আক্রান্ত না হয়।

সোায়াব সংগ্রহে অব্যবস্থাপনা
করোনার আরটি-পিসিআর টেস্টের জন্য নাক বা চোয়াল থেকে সোয়াব সংগ্রহ করা হয়ে থাকে। এই সোয়াবে পর্যাপ্ত ভাইরাস থাকলেই কেবল পরীক্ষার ফল পজিটিভ আসবে। তবে এই সোয়াব যদি ঠিকমতো সংগ্রহ করা না হয় তাহলে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিরও পরীক্ষার ফলাফল ভুয়া নেগেটিভ আসতে পারে। এক্ষেত্রেও আক্রান্ত ব্যক্তির মাধ্যমে অন্যরা সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি থাকে।

নমুনা নষ্ট হয়ে গেলে
করোনা একটি নতুন ধরনের রোগ এবং এটি পরীক্ষার জন্য পর্যাপ্ত সময় এবং নিয়মতান্ত্রিক উপায়ে তা করতে হয়। করোনা পরীক্ষার ফল পেতে ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টা সময় লেগে যায়। তবে নমুনা যদি নষ্ট হয়ে যায় কিংবা সঠিক তাপমাত্রা বা রাসায়নিক দিয়ে সংরক্ষণ না করা হয়, সেক্ষেত্রে করোনা পরীক্ষার ভুয়া নেগেটিভ ফল আসতে পারে।

নেগেটিভ ফল আসার পরও উপসর্গ থাকলে কী করবেন?
আবারো বলা ভালো, কোনো পরীক্ষাই শতভাগ সঠিক নয়। যেকোনো পরীক্ষায় ভুয়া নেগেটিভ বা পজিটিভ ফল আসতে পারে। পরীক্ষায় নেগেটিভ ফল আসার পরও যদি আপনার উপসর্গ থাকে, তবে কোয়ারেন্টিনে থাকার অভ্যাস বজায় রাখুন। অন্যদের ঝুঁকিতে না ফেলতেই এটি করতে হবে। নেগেটিভ ফল আসার ৪ থেকে ৫ দিন এই কোয়ারেন্টিনের অভ্যাস বজায় রাখুন। এই সময়ে মাস্ক পরুন, অন্যদের সাথে কিছু শেয়ার করবেন না এবং যথাসম্ভব সামাজিক দূরত্ব মেনে চলুন। এছাড়া চিকিৎসকের পরামর্শ নিন, যিনি আপনাকে ওষুধসহ প্রতিরোধমূলক প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিবেন।



Related posts