corona lockdown shibchar
সারাদেশে ১৪ দিন সর্বাত্মক শাটডাউনের সুপারিশ 

করোনার ডেলটা প্রজাতির ভাইরাসের সামাজিক সংক্রমণ ঠেকাতে সারাদেশে সর্বাত্মকভাবে ১৪ দিনের কঠোর শাটডাউনের সুপারিশ করেছে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক…

অনলাইন শপিংয়ের জন্য নতুন ফিচার আনছে ফেসবুক 

শিগগিরই ই-কমার্স ও অনলাইন শপিংয়ের জন্য নতুন ফিচার নিয়ে আসবে ফেসবুক। গতকাল নিজের ওয়ালে দেয়া এক পোস্টে এ তথ্য নিশ্চিত…

ব্রাজিলের বিতর্কিত গোলে রাগে ফুসছে কলম্বিয়া 

কোপা আমেরিকায় জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছে স্বাগতিক ব্রাজিল। গতকাল বুধবার (বাংলাদেশ সময় অনুযায়ী আজ বৃহস্পতিবার) অনুষ্ঠিত কোপা আমেরিকায় ব্রাজিল ২-১…

সব সংবাদ-তথ্য-ভিডিও

টেক

রেস্টুরেন্টের ওয়াইফাইয়ে হোমওয়ার্ক করে ভাইরাল মেয়ে দুটি! 

রেস্টুরেন্টের ওয়াইফাইয়ে হোমওয়ার্ক করে ভাইরাল মেয়ে দুটি!

করোনাভাইরাসের কারণে পৃথিবীর অনেক দেশেই এখন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম এখন অনলাইনে চলছে। যুক্তরাষ্ট্রেও এর ব্যতিক্রম নয়। শিক্ষার্থীরা অনলাইনে ক্লাস করা থেকে শুরু করে হোমওয়ার্ক পর্যন্ত অনলাইনে করছে। সেই হোমওয়ার্ক করেত গিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের দুই মেয়ে শিক্ষার্থী। রেস্টুরেন্টের ওয়াইফাই ব্যবহার করে তারা এখন আলোচনায়।

এনডিটিভি জানায়, এই দুই শিক্ষার্থী ক্যালিফোর্নিয়ায় একটি রেস্টুরেন্টের ফ্রি ওয়াইফাই ব্যবহার করে হোমওয়ার্ক করছিল। তাদের এই দৃশ্য ক্যামেরায় ধারণ করে অনলাইনে ছেড়ে দেয় কেউ। এরপর তারা ভাইরাল হয়ে পড়ে। পরে তাদের জন্য অর্থ সংগ্রহের লক্ষ্যে এমএস_মামিয়ে৮৯ নামে একজন ইনস্টাগ্রামে তাদের ছবি দেন। সেখানে অনেক মানুষ তাদের সহায়তা করেন।

এ পর্যন্ত এক লাখ ৪০ হাজার ডলার সংগ্রহ হয়েছে তাদের জন্য। তাদের ছবিতে ৭০ হাজার মানুষ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন। অনেকে তাদের প্রতি সমবেদনা দেখিয়েছেন। নানা রকমের মন্তব্য করেছেন নেটিজেনরা।

ইনস্টাগ্রামে অর্থ সংগ্রহকারী ওই ব্যক্ত বরেন, আমার মা আমাকে ছবিটি দেখান। এটি দেখে আমার মনে হয়েছে অনেকেরই হোমওয়ার্ক করার মতো প্রকৃত স্থান বা ব্যবস্থা নেই। শিক্ষার্থীদের স্কুরের কার্যক্রম চালানোর জন্য ইন্টারনেট সুবিধা নিশ্চিত করা প্রয়োজন।

জানা গেছে, ইন্টারনেটে ভাইরাল হওয়ার পর ওই দুই শিক্ষার্থীকে শনাক্ত করা গেছে। স্কুল কর্তৃপক্ষ তাদের হটস্পট সংযোগ দিয়েছে যেন তারা স্কুলের কার্যক্রম নির্বিঘ্নে করতে পারে। এছাড়া অন্যান্য শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রেও ডিজিটাল বৈষম্য দুর করার চেষ্টা করছে বলে তারা জানিয়েছে।



Related posts