লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বাড়ছে? 

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ উদ্বেগজনক থাকায় চলমান ‘সর্বাত্মক লকডাউন’ আরও এক সপ্তাহ বাড়ানোর চিন্তাভাবনা করছে সরকার। লকডাউন পরিস্থিতি পর্যালোচনা করতে এ বিষয়ে…

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ: দেশে নতুন দরিদ্র্য ১ কোটি ৬৪ লাখ মানুষ 

করোনা প্রাদুর্ভাবের পর থেকে দেশের প্রত্যেকটি খাত চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অনেক প্রতিষ্ঠান করোনার ধাক্কা সামাল দিতে না পেরে এরই মধ্যে…

‘করোনা মূলত বাতাসের মাধ্যমে ছড়ায়’ 

নভেল করোনা ভাইরাস বা কোভিড-১৯-এর জন্য দায়ী সার্স-কোভ-২ ভাইরাস বাতাসের মাধ্যমে ছড়ায় না বলে এতদিন দাবি করে আসা হয়েছে। কিন্তু…

সব সংবাদ-তথ্য-ভিডিও

বিনোদন

লেন্স গলে চোখই হারাতে বসেছিলেন নায়িকা 

লেন্স গলে চোখই হারাতে বসেছিলেন নায়িকা

দিন দিন বেড়েই চলছে কন্টাক্ট লেন্সের ব্যবহার। বিশেষ করে তরুণীরা খুবই আগ্রহী চোখ আকর্ষণীয় করে তোলার এই অনুষঙ্গে। অনেক নায়িকা-মডেলও তাদের চোখে লেন্স ব্যবহার করেন। আবার এই লেন্সই হতে পারে কারও কারও বিপদের কারণ!

সম্প্রতি  এমনই এক বিড়ম্বনার শিকার ঢাকাই সিনেমার নায়িকা তানহা তাসনিয়া। কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে একটি ফ্যাশন হাউজের ফটোশুট করতে গিয়ে কন্টাক্ট লেন্স নিয়ে দুর্ঘটনার সম্মুখীন হন চিত্রনায়িকা তানহা।

কড়া রোদের তাপে কন্টাক্ট লেন্স গলে গিয়ে তার চোখ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। বর্তমানে সব কাজ বন্ধ রেখে বাসায় বিশ্রাম নিচ্ছেন। চিকিৎসক পরামর্শ দিয়েছেন, কয়েক সপ্তাহ বিশ্রামের পর স্বাভাবিক হবে চোখের দৃষ্টি।

তানহা বলেন, ‘গত বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) কক্সবাজারে দুর্ঘটনাটি ঘটে। সেদিন রোদের মধ্যে ফটোশুট করছিলাম। রোদ ও লাইটের তীব্র তাপে আমার চোখের কন্টাক্ট লেন্স গলে যায়। সঙ্গে সঙ্গে আমি লেন্স খুলে ফেললেও চোখে কিছু দেখতে পাচ্ছিলাম না।’

‘আতঙ্কে শুটিং থেকে ওইদিনই প্লেনে ঢাকায় এসে চিকিৎসকের কাছে যাই। চিকিৎসক চোখে ব্যান্ডেজ করে মেডিসিন দিয়ে বিশ্রামে থাকতে বলেন। বাম চোখে বেশি ক্ষতি হয়েছে। এই ক’দিনে আগের চেয়ে অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে। কয়েক সপ্তাহ বিশ্রাম নিতে হবে।’

তানহা তাসনিয়া সম্প্রতি চিত্রনায়ক ইমনের বিপরীতে ‘বিয়ে আমি করবো না’ নামের একটি সিনেমার শুটিং শেষ করেছেন। শিগগিরই একই নায়কের সঙ্গে নাম ঠিক না হওয়া আরও একটি সিনেমায় অভিনয় করতে যাচ্ছেন তিনি।

এছাড়া তার অভিনীত ও কাজল আরিফিন অমি পরিচালিত ‘আইসিইউ’ নাটকটি প্রচারের অপেক্ষায়।



Related posts